• A
  • A
  • A
দিনভর দেখা নেই মিল মালিকদের, বালুরঘাট কিষাণ মাণ্ডিতে নাকাল কৃষকরা

বালুরঘাট, ৯ জানুয়ারি : বনধের প্রথম দিনে ধান বিক্রি করতে এসে হয়রানির শিকার হল কৃষকরা। ধান বিক্রি করতে এসে বালুরঘাটের কিষাণ মাণ্ডিতে সারাদিন অপেক্ষা করতে হল তাদের। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত মিল মালিকের অনুপস্থিতিতে ব্যাপক ক্ষোভ দেখা দেয় কৃষকদের মধ্যে। বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছে ব্লক প্রশাসন।

Loading the player...

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা প্রশাসন সূত্রের খবর, গতবছর সরকারি শিবিরগুলিতে ধান বিক্রি করতে প্রায় চার হাজার কৃষক নাম নথিভুক্ত করেছিল। এবছর ইতিমধ্যে যার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় ১৮ হাজার। চলতি বছরে ধান কেনার লক্ষ্যমাত্রা পূরণে বিপুল সংখ্যক কৃষকদের ধান কেনা হবে। এবছর সহায়ক দামে ধান কেনার লক্ষ্যমাত্রা ৫০ হাজার মেট্রিক টন। এখনও পর্যন্ত জেলা থেকে ধান কেনা হয়েছে লক্ষ্যমাত্রার প্রায় ৭০ শতাংশ। গত সপ্তাহ পর্যন্ত প্রায় ৩১ হাজার মেট্রিক টন ধান কেনা হয়েছে বলে দাবি খাদ্য নিয়ামকের।
এর মধ্যে ফের অব্যবস্থার অভিযোগ উঠল বালুরঘাট কিষাণ মাণ্ডিতে। সেখানে ধান বিক্রি করতে গিয়ে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে বালুরঘাট ব্লকের কৃষকদের। গতকাল একাধিক জায়গা থেকে অনেক কৃষক কুইন্টাল কুইন্টাল ধান নিয়ে হাজির হলেও সকাল থেকে অনুপস্থিত ছিলেন মিল মালিক বা মিল কর্তৃপক্ষ। তিনটে বেজে গেলেও ধান কেনা শুরু হয়নি। ক্ষুব্ধ কৃষকরা ব্লক আধিকারিককে ফোন করে। বিকেলে মিল কর্তৃপক্ষ এসে ধান কেনা শুরু করে।


আজিজুর রহমান মণ্ডল নামে এক কৃষক বলেন, তাঁরা গাড়িভাড়া করে ১০ কুইন্টালের বেশি ধান নিয়ে আসেন। তবে সকাল আটটা থেকে দাঁড়িয়ে থাকা সত্ত্বেও বিকেল পর্যন্ত মিল কর্তৃপক্ষের কোনও দেখা পাওয়া যায়নি। এই ব্যাপারে তাঁরা BDO-কে ফোন করেন। তাঁরা জানান, BDO তাঁদের আশ্বস্ত করেছেন ধান নেওয়ার ব্যপারে।

এদিকে বালুরঘাটের BDO সুস্মিতা সুব্বা বলেন, ধর্মঘটের জন্য মিল কর্তৃপক্ষের পৌঁছাতে হয়ত দেরি হয়েছে। তবে বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখবেন। ফের যাতে এমন না ঘটে তা দেখা হবে। জেলা খাদ্য নিয়ামক অমরেন্দ্রনাথ রায় বলেন, "বিষয়টি শুনেছেন। খতিয়ে দেখা হচ্ছে।"


CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  আয়না ২০১৮

  MAJOR CITIES