• A
  • A
  • A
SDO-র বুকিং করা রিসর্টে অন্য পিকনিক দল বক্স বাজানোয় বাজেয়াপ্ত করা হল সাউন্ড বক্স

জলপাইগুড়ি, ৬ জানুয়ারি : রিসর্টে সাউন্ড বক্স বাজিয়ে পিকনিক হচ্ছিল। জলপাইগুড়ির SDO (সদর) রঞ্জন দাস পুলিশ নিয়ে অভিযান চালিয়ে সেই বক্স বাজেয়াপ্ত করেন। ঘটনাটি ময়নাগুড়ির রামশাইয়ের।

Loading the player...

ময়নাগুড়ির রামশাইতে জলপাইগুড়ি জেলা পরিষদের রিসর্টটির দায়িত্বে রয়েছে প্রাক্তন KLO জঙ্গিদের স্বনির্ভরগোষ্ঠী। আজ রিসর্টে SDO অফিসের কর্মীদের পিকনিক ছিল। সেই রিসর্টে অন্য একটি দলও পিকনিক করছিল। অভিযোগ, তারা তারস্বরে সাউন্ড বক্স বাজানোয় ক্ষেপে যান SDO।
রিসর্টের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে থাকা বিজয় রায় বলেন, "আমাদের এখানে জলপাইগুড়ির ৬০ জনের একটি দল বুকিং করে পিকনিকে এসেছিল। তাদের পরিবারের লোকজন বক্স বাজিয়ে নাচানাচি করছিল। SDO সাহেব তা দেখে ক্ষেপে যান। তিনি বক্স বাজাতে বারণ করেন। আমরা বারণ করলে ওই পিকনিক পার্টি বক্স বাজানো বন্ধ করে দেয়। এরপর SDO বলেন, "আমাদের বুকিং থাকা সত্ত্বেও কেন বাইরের লোক এখানে পিকনিক করছে?" আমরা তাঁকে বলি, "আপনাদের আগেই জলপাইগুড়ির পার্টি বুক করেছিল। আপনার বুকিং পরে হয়েছে। এরপরেই SDO আমার ওপর রেগে যান। তিনি ময়নাগুড়ি থানার পুলিশ ডাকেন। পুলিশ এসে সাউন্ড বক্স বাজেয়াপ্ত করে।"


ওই পিকনিক দলের অন্যতম সদস্য ভিক্টর মল্লিক বলেন, "আমরা এই সরকারি রিসর্টে পিকনিক করার জন্য বুকিং করেছিলাম ২০ দিন আগে। ১৫০০ টাকা দিয়ে বুকিং করা হয়েছিল। বুকিং-এর সময়ই আমাদের কী কী লাগবে বলে দিয়েছিলাম। আমাদের পিকনিকে যাতে কোনও অসুবিধে না হয় তার জন্যই আমরা সরকারি জায়গায় নিয়ম মেনে বুকিং করেছিলাম। আমাদের আগে থেকে জানানোই হয়নি পিকনিকে বক্স বাজানো যাবে না। অথচ আমাদের বক্স তুলে নিয়ে চলে গেলেন SDO। আমাদের কী দোষ! আমরা তো সব নিয়ম মেনেই বুকিং করেছিলাম। পিকনিকে যদি বক্স না বাজে তাহলে কোথায় বাজবে!"

SDO-র বুকিং করা জায়গাতে অন্য পিকনিক দল সাউন্ড বক্স বাজিয়ে নাচানাচি করছিল বলেই কি SDO রেগে গেলেন? SDO বলেন, "এটা রুটিন নজরদারি। জনসমক্ষে সাউন্ড বক্স বিনা অনুমতিতে বাজানো যায় না। পিকনিক যারা করছিল তাদের বক্স বাজানোর কোনও অনুমতি ছিল না। তাই আমরা বাজেয়াপ্ত করেছি। তবে আমি কোনও পিকনিকে যাইনি।"

SDO আরও বলেন, " এমন অভিযান আগামীতেও চলবে। বিনা অনুমতিতে সাউন্ড বক্স বাজাতে দেওয়া হবে না। আর আমি রিসর্টে কোনও পিকনিকে যোগ দিতে যাইনি। আমার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ ভিত্তিহীন।"

জলপাইগুড়ি জেলাপরিষদের সভাধিপতি উত্তরা বর্মণ বলেন, " একজনের বুকিং থাকা সত্বেও SDO (সদর) কেন এটা করলেন তা খতিয়ে দেখতে হবে। আর SDO-র পিকনিকে অসুবিধার জন্য বুকিং করে পিকনিক করা অন্য পার্টির সাউন্ড বক্স কেন বাজেয়াপ্ত করা হবে সেই বিষয়টিও খতিয়ে দেখছি।"

জলপাইগুড়ির জেলাশাসক শিল্পা গৌরী সারিয়া জানালেন, সাউন্ড বক্স বাজাতে অনুমতি নিতে হয়। বিনা অনুমতিতে সাউন্ড বক্স বাজানোর জন্যই বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। কিন্তু SDO সাহেব তার পিকনিকের অসুবিধার জন্য যদি এমন করে থাকেন তাহলে বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখতে হবে। SDO আমাকে কিছুই জানায়নি।










CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  আয়না ২০১৮

  MAJOR CITIES