• A
  • A
  • A
রোগী মৃত্যুর পর নিগ্রহ, নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন জুনিয়র ডাক্তাররা

মালদা, ১১ জানুয়ারি : মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের জুনিয়র ডাক্তারদের নিগ্রহের অভিযোগ উঠল মৃতের পরিবারের লোকজনের বিরুদ্ধে। অভিযুক্তদের উপযুক্ত শাস্তি না হওয়া পর্যন্ত কর্মবিরতির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জুনিয়র ডাক্তাররা। পরে পুলিশের আশ্বাসে প্রায় আড়াই ঘণ্টা পর কাজে যোগ দেন তাঁরা।


গতকাল শ্বাসকষ্টের সমস্যা দেখা দেওয়ায় মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভরতি করা হয় স্থানীয় বাসিন্দা বীরেন সরকারকে। গতরাত ৮টা ৪৫ মিনিটে তাঁর মৃত্যু হয়। মৃত্যুর পরই তাঁর পরিবারের সদস্যরা চিকিৎসক কস্তুরি রায় ও জয়ন্ত সিংহকে নিগ্রহ করেন বলে অভিযোগ। খবর পেয়ে হাসপাতালে আসে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। তারপর নিরাপত্তার দাবিতে কর্মবিরতি শুরু করেন জুনিয়র ডাক্তাররা।
জয়ন্ত সিংহের বক্তব্য, "সেই সময় আমি ওই ওয়ার্ডে ছিলাম না। অন্য ওয়ার্ড থেকে মেল মেডিকেল ওয়ার্ডে এসেছিলেন। এই ওয়ার্ডে এসে দেখি কয়েকজন কস্তুরিকে নিগ্রহ করার চেষ্টা করছে। আমি বাধা দিতে গেলে তারা আমার উপরও হামলা চালায়। ভরতির সময় থেকেই ওই রোগীর শারীরিক অবস্থা ভালো ছিল না। তাঁকে বাঁচানোর সবরকম চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন কস্তুরি।"


তিনি আরও জানান, একজন রোগীর বেডের পাশে কীভাবে এতজন লোক থাকতে পারে তা তাঁর জানা নেই। আজকের ঘটনায় তাঁরা নিরাপত্তার অভাবে ভুগছেন। তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, যতক্ষণ পর্যন্ত পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার না করবে, ততক্ষণ তাঁরা কর্মবিরতি পালন করবেন। কস্তুরি বলেন, "ওই রোগীকে বাঁচাতে যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। কিন্তু পারিনি। রোগীর আত্মীয়স্বজন আমাকে নিগ্রহ করার চেষ্টা করে। সময়মতো নিরাপত্তারক্ষী ও পুলিশ চলে আসায় বেঁচে গেছি। তবে এই ঘটনার পর নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।" হাসপাতালের ডেপুটি সুপার জ্যোতিষচন্দ্র দাসও এই ঘটনায় যথাযথ তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন।

CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  আয়না ২০১৮

  MAJOR CITIES