• A
  • A
  • A
নববর্ষকে স্বাগত জানিয়ে ২০১৯টি ডুব বিষ্ণুপুরের সদানন্দের

বিষ্ণুপুর, ২ জানুয়ারি : তিন বছর ধরে নববর্ষকে অভিনব ভাবে স্বাগত জানাচ্ছেন তিনি। এবারও বিষ্ণুপুরের লাল বাঁধে ডুব দিয়ে বর্ষবরণ করলেন সদানন্দ দত্ত। প্রায় ৪৮ মিনিটে একনাগাড়ে ২০১৯টি ডুব দিলেন। ২০১৯টি ডুব দিয়েও প্রশাসনিক সিলমোহরের অভাবে গিনেস বুকে নাম তোলানোর ইচ্ছা অপূর্ণ থেকে গেল তাঁর।

Loading the player...
ছবি : সদানন্দ দত্ত


পেশায় গাড়ি চালক সদানন্দকে সাঁতার শিখিয়েছিলেন রসিকগঞ্জের অসিত ঘোষ নামে এক প্রবীণ সাঁতারু। বয়সের ভারে তিনি সাঁতার ছেড়ে দিলেও যোগ্য শিষ্য তৈরি করে দিয়েছেন। গতকাল কয়েক হাজার উৎসাহী মানুষের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বিষ্ণুপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান শ্যামাপদ মুখার্জি ও তাঁর অনুগামীরাও। সাঁতারু সদানন্দ দত্ত বলেন, "আমি বাংলা ও ইংরাজি উভয় সালের শুরুতেই লাল বাঁধে ডুব দিয়ে আসছি। আমার স্বপ্ন গিনেস বুকে নাম তোলানোর। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কাছেও এই বার্তা পৌঁছে দিতে চাই।" তবে সদানন্দের এই ডুব সংক্রান্ত সরকারি কোনও আধিকারিক সেভাবে প্রতিক্রিয়া জানাতে আগ্রহী হননি। এমন কী তাঁর জলে ডুব দেওয়া নিয়ে কোনও সরকারি নির্দেশনামা না থাকায় 'গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ডে' নাম তোলানোর বিষয়টিও বিশ বাঁও জলে।


অবশ্য বিষ্ণুপুরের পৌর চেয়ারম্যান তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শ্যামাপদ মুখার্জি বলেন , "সদানন্দের পাশে আমরা আছি। গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ডে নাম তোলার জন্য যে সব পদ্ধতি অবলম্বন করতে হয় তা আমার জানা নেই। এই বিষয়ে খোঁজ খবর নিয়ে দেখছি।"


CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  আয়না ২০১৮

  MAJOR CITIES