• A
  • A
  • A
গীতা পাঠ করার চেয়ে ফুটবল খেলা বেশি উপকারী

কলকাতা, ১২ জানুয়ারি: আলস্যকে কোনও দিনই প্রশ্রয় দিতে পারতেন না স্বামীজি। কর্মময় জীবনই ছিল তাঁর জীবনের মূল আদর্শ। জীবনের লক্ষ্যে পৌঁছাতে কর্মকেই বরাবর প্রাধান্য দিয়েছেন তিনি। আলস্যকে পিছনে ফেলে কর্মের মাধ্যমেই জীবনে এগিয়ে যেতে হবে- এই ছিল তাঁর বাণী। বিবেকানন্দর কথায় "গীতা পাঠ করার চেয়ে ফুটবল খেলা বেশি উপকারী।" না, প্রাচীন দার্শনিক গ্রন্থ বা গীতাকে অবহেলা করার কোনও উদ্দেশ্য তাঁর ছিল না। বরং বসে না থেকে সারা জীবন সুস্থভাবে মানুষ যাতে কাজ করতে পারেন সেই আদর্শেই উদ্বুদ্ধ করেছেন সকলকে।


স্বামীজি উপলব্ধি করতে পেরেছিলেন, জীবনে চলার জন্য দরকার নীরোগ জীবন। সতেজ সুস্বাস্থ্য। তাঁর উপলব্ধিতে, বাঙালির রোগ কখনও শরীরে হয় না, হয় মনে। বয়সের ছাপ তাদের শরীরে ধরা দেয় না, দেয় মনে। কোনও দিন ধর্মীয় কুসংস্কারকে প্রশয় দিতেন না তিনি। ছেলেবেলা থেকেই অসাধারণ মেধাবী ছিলেন বিলে। দুষ্টুমিতেও ব্যতিব্যস্ত করে তুলতেন গুরুজনদের। পাশাপাশি সুঠাম স্বাস্থ্যের অধিকারী ছিলেন। কারণ, শরীরচর্চা ছিল নিয়মিত রুটিনের তালিকায়।
স্বামী বিবেকানন্দর মহামূল্যবান বাণী বিশ্বের সব প্রান্তের মানুষের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। যুব সমাজের কাছে তিনি এক অনুপ্রেরণামূলক ব্যক্তিত্ব। তাই আজ তাঁর ১৫৭তম জন্মবার্ষিকীতে শুধু ভারতবাসীর কাছে নয়, পুরো বিশ্বের কাছে উৎসবসম। পরিশ্রমকে পাথেয় করে জীবনে এগিয়ে যাওয়ার মন্ত্রকে স্মরণ করার প্রধান দিন।

CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  আয়না ২০১৮

  MAJOR CITIES