• A
  • A
  • A
বিষমদে মৃত বেড়ে ১১

কালনা ও শান্তিপুর, ২৯ নভেম্বর : বিষমদ খেয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১১। আজ ভোরে শক্তিগড় হাসপাতালে মৃত্যু হয় গদাধর মাহাতর। এর আগে, গতরাতে কল্যাণী JNM হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে মদ বিক্রেতা চন্দন মাহাতর ভাই লক্ষ্মী মাহাতর। তাদের বাবা আশঙ্কাজনক অবস্থায় কালনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অসুস্থ আরও ২৮ জন। এদের মধ্যে ন'জনকে কলকাতায় রেফার করা হয়েছে।

Loading the player...

বিষমদ খেয়ে মৃত্যুর ঘটনা সামনে আসার পর কল্যাণীতে দিদির বাড়ি পালিয়ে যায় মদ বিক্রেতা চন্দন মাহাত ও তার ভাই লক্ষ্মী। সেখানে অসুস্থতা বোধ করায় তাদের কল্যাণী JNM হাসপাতালে ভরতি করা হয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন চন্দনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। রাত ৯টা নাগাদ মৃত্যু হয় চন্দনের। ঘণ্টাখানেক পর মারা যায় লক্ষ্মীও।
স্থানীয়দের অভিযোগ, নিশ্চিন্তপুরের চৌধুরিপাড়ায় চোলাই মদের ঠেক চলত রমরমিয়ে। দিনে দুপুরে সেখানে চোলাই মদ বিক্রি হত। সম্প্রতি সেই চোলাই মদ খেয়ে এলাকার বেশ কয়েকজন অসুস্থ হয়ে পড়ে। গতকাল সকালে সাতজনের মৃত্যু হয়। মৃতরা হল দুলারচান মাহাত, ভালোয়া মাহাত, বুটো মাহাত, সুনীল মাহাত, কাশীনাথ মাহাত, গৌতম শর্মা ও মুন্না রাই। পরে শান্তিপুর স্টেট জেনেরাল হাসপাতাল থেকে স্থানান্তরিত করার সময় মৃত্যু হয় বাসুদেব মাহাতর।


স্থানীয়রা জানিয়েছেন, এলাকায় মদের ঠেক চললেও পুলিশ প্রশাসনকে জানিয়ে কোনও লাভ হয়নি। মূলত খেটে খাওয়া মানুষ দিনের শেষে যা উপার্জন করে, মদ খেতে গিয়ে সেই টাকা খরচ হয়ে যায়। তা নিয়ে এলাকায় একটা উত্তেজনার পরিবেশ এমনিতেই ছিল। বিষয়টি নিয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগও জানানো হয়েছিল। কিন্তু, পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নেয়নি বলে অভিযোগ। আজকের ঘটনার পর ফের পুলিশের কাছে অভিযোগ জানানো হয়েছে। ঘটনার তদন্তে নেমে চারজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ধৃতদের নাম সাধন বিশ্বাস, জয়দেব সাঁতরা, জয়ন্তী মাহাত ও গুছিয়া মাহাত।



CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  আয়না ২০১৮

  MAJOR CITIES