• A
  • A
  • A
মুখ্যমন্ত্রীর পর এবার সুজিতের হাত ধরে একই দমকল কেন্দ্রের উদ্বোধন

অশোকনগর, ৯ জানুয়ারি : পুলিশকেও নিতে হবে আগুন নেভানোর প্রশিক্ষণ। গতকাল উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগরে দমকল কেন্দ্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে একথা বললেন রাজ্যের দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু। সেখানে উপস্থিত ছিলেন সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদার, দমকলের DG জগমোহন ও অন্যান্য পদাধিকারীরা।

Loading the player...
ভিডিয়োয় শুনুন সুজিত বসুর বক্তব্য


উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগরে জেলার ২০তম অগ্নিনির্বাপণ ও জরুরি পরিষেবা কেন্দ্রের উদ্বোধন হয় গতকাল। গতবছর ফেব্রুয়ারি মাসে পরিকাঠামো ছাড়াই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারাসত থেকে রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে এই দমকল কেন্দ্রের উদ্বোধন করেছিলেন। সেদিন লোক দেখানো দমকল ইঞ্জিন আনা হয়েছিল। টাঙানো হয়েছিল সাইন বোর্ডও। মুখ্যমন্ত্রীর কর্মসূচির পরের দিনই ইঞ্জিন ফেরত চলে যায়। খুলে ফেলা হয়েছিল সাইনবোর্ডও। তার পরপরই অশোকনগরে বেশ কয়েক জায়গায় আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। প্রশ্ন ওঠে মুখ্যমন্ত্রীর সেই দমকল কেন্দ্র উদ্বোধন নিয়ে। ঘরে বাইরে চাপে পড়ে অবশেষে সেই দমকল কেন্দ্রের ফের উদ্বোধন হল। উদ্বোধন করলেন সুজিত বসু।


সুজিতবাবু বলেন, "কোথাও কোনও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা হলে দমকলকর্মীরা আগুন নেভানোর কাজ করেন। পুলিশ তখন আইনশৃঙ্খলা দেখে। আমরা পুলিশকেও আগুন নেভানোর প্রশিক্ষণ দেব। যাতে দমকল ও পুলিশ একসঙ্গে আগুন নেভানোর কাজ করতে পারে। পুলিশ ও দমকল একে অপরের পরিপূরক বলে মনে করি আমরা। সম্প্রতি কলকাতা পুলিশের সঙ্গে এই বিষয়টি নিয়ে একটা বৈঠক করেছি আমরা। প্রথমে কলকাতা পুলিশকে আগুন নেভানোর প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। তারপর জেলাতেও এই কর্মসূচি কার্যকর করা হবে।"
রাজারহাট-নিউটাউনে পরপর বহুতল নির্মাণের ক্ষেত্রে দমকলের ছাড়পত্র নিয়ে কোনও উদ্বেগ আছে কি না, এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, "আমাদের হাতে এখন ৬৮ মিটার উঁচু ল্যাডার মজুত আছে। তাই, উদ্বেগের কিছু নেই। রাসায়নিক ভরা বেলুন ব্যবহার করে বিদেশি প্রযুক্তিতে উঁচু বাড়ির আগুন নেভানোরও ভাবনা-চিন্তা চলছে।"

এই অনুষ্ঠান সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি বিভাগের দুই মহিলা কর্মী। তাঁদের হাস্যকর সঞ্চালনা বারবার অনুষ্ঠানের ছন্দ নষ্ট করেছে। যেমন সাংসদের নাম ঘোষণার সময় মাইকে বলা হয়েছে "শ্রী কাকলি ঘোষদস্তিদার।" পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতিকে বলা হয়েছে "ব্লক প্রেসিডেন্ট।" হাস্যকর অনুষ্ঠান সঞ্চালনা দেখে আমন্ত্রিত অতিথিরা অনেকে মঞ্চেই উঠতে চাইছিলেন না। পরিস্থিতি সামাল দিতে অশোকনগরের বিধায়ক ধীমান রায় অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন।




CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  আয়না ২০১৮

  MAJOR CITIES