• A
  • A
  • A
একটা দুর্গাপুজো কমিটির গায়ে হাত পড়লে ছেড়ে দেব না মোদিবাবু : মমতা

বারাসত, ১১ জানুয়ারি : "পুজো কমিটিগুলিকে আয়কর দপ্তর নোটিশ পাঠিয়েছে। বলেছে, হিসেব দাও। সবাইকে না কি আয়কর দিতে হবে। তোমাদের উদ্দেশ্য কি দুর্গাপুজো বন্ধ করে দেওয়া ? দুর্গাপুজো বন্ধ করার চেষ্টা হলে, একটাও দুর্গাপুজো কমিটির গায়ে হাত পড়লে মোদিবাবু আমরা ছেড়ে কথা বলব না।" আজ বারাসতের যাত্রা উৎসবের সূচনা অনুষ্ঠানে একথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Loading the player...

বারাসতের কাছারি ময়দানে ২৩ তম যাত্রা উৎসবের সূচনা হয়। অনুষ্ঠানে যোগ দিতে কৃষ্ণনগর থেকে আকাশপথে বারাসত আসেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রথমেই তিনি বিভিন্ন প্রকল্পের সূচনা করেন। উপভোক্তাদের হাতে তুলে দেন নানা সামগ্রী। এরপর ভাষণ দিতে গিয়ে শুরু থেকে কেন্দ্রীয় সরকার ও BJP-কে নানা প্রসঙ্গে আক্রমণ করেন। তিনি বলেন, "বছরে ২ কোটি বেকারের চাকরি দেবে বলেছিলে ? কজনের হয়েছে ? উলটে উচ্চবর্ণের জন্য চাকরিতে ১০ শতাংশ সংরক্ষণ করেছ। সংরক্ষণ করলে চাকরির জায়গাটা ব্লক হয়ে যায়। বছরে ৮ লাখ টাকার বেশি যাদের আয় তাদের জন্য তোমরা সংরক্ষণ করছ?" স্বাস্থ্যবিমা নিয়েও কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন তিনি। বলেন, "কয়েকজন স্বাস্থ্যবিমার চিঠি পেয়েছেন। BJP পার্টি অফিস থেকে পাঠানো ওই চিঠির কোনও গুরুত্ব নেই। আমরা অনেক আগেই রাজ্যে স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প চালু করেছি। তুমি প্রচার করছ যে সবই তুমি করেছ। তুমি যদি সব করে থাক, তাহলে আমরা কি কচু করেছি?"
এদিকে, ইনকাম ট্যাক্স দপ্তরের পাঠানো নোটিশ পৌঁছেছে ৩০টি পুজো কমিটির কাছে। আয়কর দপ্তর সূত্রে খবর, পুজো কমিটিগুলির চিন্তার কোনও কারণ নেই। আয়কর দপ্তরের নিয়ম না মানার জন্য এবছর তাদের বিরুদ্ধে কোনও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না। তাদের নোটিশ পাঠানো হয়েছে শুধুমাত্র সচেতনতা বাড়ানোর জন্য। যাতে এবছর অর্থাৎ ২০১৯-এর দুর্গাপুজোয় নিয়মানুযায়ী TDS কাটে পুজো কমিটিগুলি। যাদের কাছে TAN নম্বর নেই তারা অবিলম্বে যাতে সেটা করিয়ে নেয়। এই নোটিশ পাঠানো নিয়েও সমালোচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী।


তিনি বলেন, "আগে বামেরা বাংলাটাকে জ্বালিয়ে খেয়েছে। মানুষের উপর অত্যাচার করেছে। এখন সাথে জুটেছে তথাকথিত বামের বন্ধু তথাকথিত নাটুকে রাম। নোটবাতিলে কত টাকা লুট করেছে তার হিসেব কি সাধারণ মানুষ জানে ? কত আয়কর জমা পড়েছে সেটা জানে ? দেশে অনেক মন্দির আছে, ট্রাস্ট আছে। তারা কি সবাই আয়কর দেবে ? দুর্গোপুজো যারা করে তারা তো লাভের জন্য করে না। উৎসব করে মানুষকে আনন্দ দিতে। এরা অলাভজনক সংস্থা। তাই আয়কর দেওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। পুজোর জন্য সাধারণ মানুষ চাঁদা দেয়। তুমি দাও ? তোমার সরকার কি দেয় বাবা ? আমাদের সরকার কমিউনিটি ডেভেলপমেন্টের জন্য টাকা দেয়। তোমার সরকার এক পয়সাও দেয় না। আমি সবকটা ক্লাবকে বলব কেউ যাবে না। সবাই জোট বাঁধুন। যারা প্রকৃত চোর তাদের থেকে কত টাকা আয়কর নেন। যারা প্রকৃত গুন্ডা তারা দেশের বাইরে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আর আমাদের বাংলার ছেলেরা পুজো করছে তাদের বলছে পুজোর জন্য আয়কর দিতে হবে। দেশে আইনের শাসন নেই। দেশে গণতন্ত্র নেই।" রাফাল চুক্তি নিয়ে আজই প্রথম মুখ খোলেন মমতা। BJP-কে নিশানা করে তিনি বলেন, "তোমরা দেশের টাকা বিদেশে নিয়ে যাবে। রাফাল চুক্তি করবে। আর দেশের মানুষকে বোকা বানাবে।"

ধর্মঘট ডাকার জন্য বামেদের সমালোচনা করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, "তোমার সঙ্গে আমার রাজনীতির ফারাক আছে। থাকতেই পারে। কিন্তু, বনধের নামে স্কুলগাড়িতে বোমা মেরেছে কেন? ছাত্র-ছাত্রীরা আমাদের সম্পদ। আর ওদের গাড়িতেই বোমা মারছ। এটা রাজনীতি? দেশ ভাগ করার চক্রান্ত হচ্ছে। দেশ দখল করার চক্রান্ত হচ্ছে। নানাভাবে মানুষকে হেয় করার চক্রান্ত হচ্ছে। একজনের সঙ্গে আরেকজনের ঝামেলা লাগিয়ে দেওয়ার চক্রান্তও হচ্ছে। বাংলার মাটি ভাগাভাগি পছন্দ করে না। এই মাটি মানুষকে ঐক্যবন্ধ করে।"

CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  আয়না ২০১৮

  MAJOR CITIES