• A
  • A
  • A
BJP-র সমান আসন পেয়েও জয়পুর পঞ্চায়েত সমিতি দখল তৃণমূলের

পুরুলিয়া, ৩ জানুয়ারি : পুরুলিয়ায় বলরামপুর পঞ্চায়েত সমিতির সঙ্গে আজ জয়পুর পঞ্চায়েত সমিতিরও দখল নেয় শাসকদল তৃণমূল। বিষয়টি জানাজানি হতেই চরম উত্তেজনা ছড়ায় বলরামপুর ও জয়পুর চত্বরে।

Loading the player...

নিরাপত্তাজনিত কারণে গতকাল রাত থেকে কয়েক হাজারেরও বেশি পুলিশ মোতায়েন করা হয় বলরামপুর চত্বরে। পাশাপাশি রুট মার্চ করে সশস্ত্র পুলিশবাহিনী। তবু আজ বলরামপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় BJP ও তৃণমূল কংগ্রেসের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই অবস্থায় শুরু হয় বলরামপুর পঞ্চায়েত সমিতির বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া। বলরামপুর পঞ্চায়েত সমিতিতে ভোটের ফলাফলের শেষে ২০ টি আসনের মধ্যে ১৭ টি পায় BJP এবং তিনটি পায় তৃণমূল কংগ্রেস। পরে ৯ জন BJP সদস্য তৃণমূলে যোগ দিলে বলরামপুর পঞ্চায়েত সমিতিতে ক্ষমতায় আসে তৃণমূল। বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া শেষ হলে ফের নতুন করে সংঘর্ষে জড়ায় BJP ও তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থক। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ করলে পুলিশের সঙ্গে বচসা বাধে BJP সমর্থকদের। সেইসময় পালাতে গিয়ে বেশ কয়েকজন BJP কর্মী আহত হন। এই ঘটনায় আহত হন দুই পুলিশ কর্মীও। পরে তাঁদের উদ্ধার করে পুরুলিয়ার দেবেন মাহাত সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এই ঘটনায় আইনবিরুদ্ধ কাজের অভিযোগে জেলা BJP-র সাধারণ সম্পাদক বিবেক রাঙা সহ চার BJP নেতাকে গ্রেপ্তার করে বলরামপুর থানার পুলিশ।
অন্যদিকে জয়পুর পঞ্চায়েত সমিতিতেও আজ বোর্ড গঠন প্রক্রিয়ায় উত্তেজনা দেখা দেয়। ১৪৪ ধারা জারি সত্ত্বেও কয়েক হাজার BJP সমর্থক জয়পুরে জড়ো হন। BJP-কে টেক্কা দিয়ে তৃণমূলেরও কয়েক হাজার কর্মী ও সমর্থক জমায়েত হন সেখানে। এই পরিস্থিতিতে জয়পুরের বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া শুরু হয়। এই পঞ্চায়েত সমিতিতে মোট আসন সংখ্যা ২১। নির্বাচনের পর BJP ৯, তৃণমূল ৯, কংগ্রেস ১, ফরোয়ার্ড ব্লক ১ ও CPI(M) ১ টি করে আসনে জয়ী হয়। এই পরিস্থিতিতে বিরোধীদের জোটবদ্ধ করে BJP পরিচালিত বোর্ড গঠনের পরিকল্পনা নেয় BJP। কিন্তু সেখানে ফরোয়ার্ড ব্লক ও CPI(M)-এর দুই সদস্য প্রকাশ্যে তৃণমূলকে সমর্থন করায় বেকায়দায় পড়ে যায় BJP। ক্ষোভে সভাকক্ষ ত্যাগ করেন BJP-র ন'জন জয়ী সদস্য। কার্যত বিরোধী সদস্য ছাড়াই বোর্ড গঠন করে তৃণমূল।


এবিষয়ে BJP-র জেলা সভাপতি বলেন, "প্রশাসন ও পুলিশকে কাজে লাগিয়ে তৃণমূল বোর্ড দখলে নিলেও মানুষের সমর্থন আমাদের সঙ্গেই রয়েছে। বলরামপুর এবং জয়পুরে কোন অপ্রীতিকর ঘটনার জন্য প্রশাসন এবং তৃণমূল দায়ি থাকবে। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে উলোট পুরাণ হবে পুরুলিয়ায়।"

তৃণমূল জেলা সভাপতি তথা মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাত বলেন, "জয়পুর ও বলরামপুরে BJP সাধারণ মানুষকে উত্ত্যক্ত করে অপ্রীতিকর পরিস্থিতির দিকে নিয়ে যেতে চেয়েছিল। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছে। উন্নয়নকে সমর্থন জানিয়ে নির্বাচিত সদস্যরাও তৃণমূলের বোর্ড গঠন করতে সমর্থন করেন। এটা প্রত্যাশিত ছিল আমাদের কাছে।"

প্রসঙ্গত, ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনের পর জঙ্গলমহলের পুরুলিয়া জেলায় যেভাবে BJP সাফল্য পেয়েছিল। বোর্ড গঠনের পর তা আর ধরে রাখতে পারল না BJP। সবুজ ঝড়ে উড়ে গেল গেরুয়া মাটির ভিত।

CLOSE COMMENT

ADD COMMENT

To read stories offline: Download Eenaduindia app.

SECTIONS:

  হোম

  রাজ্য

  দেশ

  বিদেশ

  ক্রাইম

  খেলা

  বিনোদন-E

  ইন্দ্রধনু

  অনন্যা

  গ্যালারি

  ভ্রমণ

  ଓଡିଆ ନ୍ୟୁଜ

  আয়না ২০১৮

  MAJOR CITIES